ব্রেকিং

২০ দলীয় জোটের মান-অভিমানের অবসান অচিরেই: রিজভী

| বুধবার, ০৮ মে ২০১৯

২০ দলীয় জোটের মান-অভিমানের অবসান অচিরেই: রিজভী

২০ দলীয় জোট থেকে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি- বিজেপির বেরিয়ে যাওয়াকে মান-অভিমান হিসেবে অভিহিত করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, অচিরেই এসব অভিমানের অবসান ঘটবে।

বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, চলমান রাজনীতির এখন দুঃসময়ে চলছে। এই দুঃসময়ে জোটের অন্তর্ভূক্ত অনেকের মধ্যে মান-অভিমান থাকতে পারে। সেটার নিরসন হয়ে যাবে। বিশেষ করে বড় দল বিএনপি এবং জোটের নেতাদের পদক্ষেপে এগুলো থাকবে না। অচিরেই এই মান-অভিমান সেরে যাবে।

২০ দলীয় জোটের ঐক্য সুদৃঢ় দাবি করে তিনি বলেন, সরকারের নানা ধরনের খেলা-ধূলা থাকতে পারে। কিন্তু যারা দীর্ঘ দশ বছর গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছেন তাদের মধ্যে ভাঙ্গন আসবে না। সরকার যত নিষ্ঠুর হবে ততই ঐক্য আরো অটুট হবে, আরো মজবুত হবে, ততই সিমেন্টেড হবে।

রমজান মাসে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধগতি নিয়ে রিজভী বলন, দুষ্টচক্রের সিন্ডিকেটের কাছে সরকার জিম্মি থাকায় বাজার নিয়ন্ত্রণ ব্যর্থ হচ্ছে। সাধারণ মানুষের প্রতি সরকারের কোনো দায় নেই। বাজারের নিয়ন্ত্রকরাই এখন সরকারকে নিয়ন্ত্রণ করছে।

রমজানের বাজার পরিস্থিতিতে জনজীবনের দুর্বিষহ অবস্থা তুলে ধরতে গিয়ে তিনি আরও বলেন, দেশের গণতন্ত্র ধরাছোঁয়ার বাইরে। জনগণের ভোটের অধিকার শেষ করে এখন ভাতের অধিকার এবং ন্যায় বিচারের অধিকার কেড়ে নিতে তৎপর এই সরকার। আওয়ামী সিন্ডিকেট পবিত্র রমজান মাস এলেই দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে মানুষকে জিম্মি করে ফেলে। লুটপাটতন্ত্র সর্বত্র আজ জেঁকে বসেছে।

রিজভী বলেন, বাণিজ্যমন্ত্রী বলেছিলেন- রমজানে নিত্যপণ্যের দাম বাড়বে না। অথচ রোজার শুরুতেই বাজার অস্থির হয়ে উঠেছে। হু হু করে দাম বেড়ে চলেছে। বিভিন্ন পণ্যের দাম গড়ে বেড়েছে তিন থেকে চার গুন। বাজারে সরকারের কোনো নজরদারি নেই, তাদের নজর লুটপাটে।

তিনি বলেন, আজকে শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে না, কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পণ্যে দাম পায় না। বিজেএমসির নিয়ন্ত্রণাধীন পাটকলসমূহে প্রতিদিন কোনো না কোনো কলে ধর্মঘট চলছে। বহুদিন তারা বেতন পায় না, ক্ষুধায়-দাবিদ্রতায় দিনাতিপাত করতে হচ্ছে এই পাটকল শ্রমিকদেরকে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপিকা শাহিদা রফিক, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, কেন্দ্রীয় নেতা মুনির হোসেন প্রমুখ ছিলেন।

Comments

comments

আপনার পছন্দের এলাকার খবর জানতে...

আর্কাইভ